ঢাকা মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪ , ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ আর্কাইভস ই পেপার

nogod
nogod
bkash
bkash
uttoron
uttoron
Rocket
Rocket
nogod
nogod
bkash
bkash

আমদানি বেড়েছে ফেব্রুয়ারিতে

অর্থনীতি

বাণিজ্য ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৮:০১, ৮ এপ্রিল ২০২৪

সর্বশেষ

আমদানি বেড়েছে ফেব্রুয়ারিতে

গত ফেব্রুয়ারি মাসে বিভিন্ন পণ্য আমদানির জন্য ৫২৫ কোটি ডলার ব্যয় হয়েছে। গত বছরের একই মাসের তুলনায় যা ৬২ কোটি ডলার বা ১৩ দশমিক ৪৭ শতাংশ বেশি। গত জানুয়ারি পর্যন্ত আগের ১৫ মাস প্রতি মাসের আমদানি ব্যয় আগের বছরের একই মাসের চেয়ে কম ছিলো। 

ডলার সংকটের কারণে ২০২২ খ্রিষ্টাব্দের জুলাই থেকে আমদানি ব্যয় কমাতে বিভিন্ন নিয়ন্ত্রণমূলক ব্যবস্থা নেয়া হয়। বিভিন্ন পণ্যে শতভাগ পর্যন্ত এলসি মার্জিন আরোপ করা হয়। এই মার্জিনের পুরোটাই নিজস্ব উৎস থেকে দিতে বলা হয়। আবার বেশ কিছু পণ্যে শুল্ক বাড়ানো হয়। প্রতিটি বড় এলসি তদারকি শুরু করে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। একই সঙ্গে ডলার সংস্থান করা ছাড়া ঋণপত্র না খুলতে বলা হয়। এসব উদ্যোগের প্রভাবে ২০২২ খ্রিষ্টাব্দের অক্টোবর থেকে আমদানি কমতে শুরু করে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, একক মাস হিসেবে ফেব্রুয়ারিতে আমদানি বাড়লেও চলতি ২০২৩-২৪ অর্থবছরের প্রথম আট মাসে (জুলাই-ফেব্রুয়ারি) কম রয়েছে ১৫ দশমিক ৫০ শতাংশ। এ সময়ে মোট ৪ হাজার ৪১০ কোটি ডলারের পণ্য আমদানি হয়েছে। এ সময়ে মূলধনি যন্ত্রপাতি, ভোগ্যপণ্যসহ বেশির ভাগ পণ্যের আমদানি কমেছে। নিয়ন্ত্রণমূলক ব্যবস্থা শুরুর পর গত অর্থবছর (২০২২-২৩) মোট ৭ হাজার ৫০৬ কোটি ডলারের পণ্য আমদানি হয়। আমদানিতে প্রতি মাসে গড়ে ব্যয় হয় ৬২৫ কোটি ডলার। আর বিধিনিষেধের আগে ২০২১-২২ অর্থবছর মোট আমদানি হয়েছিলো ৮ হাজার ৯১৬ কোটি ডলার। 

বাংলাদেশ ব্যাংকের একজন কর্মকর্তা গণমাধ্যমকে বলেন, ডলারের ওপর চাপ কমাতে আমদানিতে নিয়ন্ত্রণমূলক বিভিন্ন ব্যবস্থা নেয়া হয়েছিলো। এর মাধ্যমে বিলাসী পণ্য নিয়ন্ত্রণ করা ছিলো প্রধান লক্ষ্য। এরই মধ্যে ডলারের ওপর চাপ একটু করে কমতে শুরু করেছে। 

জনপ্রিয়