ঢাকা মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪ , ৩ আষাঢ় ১৪৩১ আর্কাইভস ই পেপার

nogod
nogod
bkash
bkash
uttoron
uttoron
Rocket
Rocket
nogod
nogod
bkash
bkash

সংস্কার আসছে আনসারে

জাতীয়

আমাদের বার্তা ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৭:০২, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২৩

সর্বশেষ

সংস্কার আসছে আনসারে

কয়েক দিন আগেই আনসার ব্যাটালিয়ন আইন-২০২৩ এর খসড়ায় চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিপরিষদ। এতে বিদ্রোহ বা বিশৃঙ্খলা করলে মৃত্যুদণ্ড ও যাবজ্জীবনসহ বিভিন্ন ধরনের শাস্তির বিধান রাখা হয়। পাশাপাশি চাকরি থেকে বরখাস্ত করার বিধানও রাখা হয়েছে। তবে তা এখনও আইনে রূপ পায়নি। জাতীয় সংসদের মাধ্যমে শিগগিরই এটাকে আইনে পরিণত করা হবে বলে জানা গেছে।

এবার আনসারে আরও বেশ কিছু সংস্কার বা পরিবর্তনের পরিকল্পনা করা হচ্ছে। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, পর্যায়ক্রমে এসব পরিবর্তন আনা হবে। এই বাহিনীটিকে আলাদা সত্ত্বা দেওয়ারও উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে। এ জন্য বিশেষ আনসার ও হিল আনসারকে ব্যাটালিয়ন আনসারে যুক্ত করতে সরকারি আদেশ (জিও) জারি করা হয়েছে। এসব বিষয়ে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য আনসার ব্যাটালিয়ন সদর দপ্তরে চিঠিও দিয়েছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

এদিকে ‘আনসার ব্যাটালিয়ন আইন ২০২৩’-এর খসড়ায় গুরুতর অপরাধের বিচারে বিশেষ একটি আদালত বা স্পেশাল আনসার ব্যাটালিয়ন কোর্ট গঠন, পাশাপাশি লঘুদণ্ড কিংবা অভ্যন্তরীণ অপরাধ বিচারে সামারি আনসার ব্যাটালিয়ন কোর্ট গঠনের বিধান রাখা হয়েছে। এই দুই আদালতের নেতৃত্ব দেবেন মহাপরিচালক (ডিজি) ও অতিরিক্ত মহাপরিচালক (এডিজি)। বিধি অনুযায়ী এসব আদালতে বিচার করা যাবে।

বিশেষ আনসার ও হিল আনসার হিসেবে কর্মরত একাধিক সদস্যের অভিযোগ, তাদের চাকরি স্থায়ীকরণ বা নিয়মিতকরণে প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি ও নির্দেশনা ছিল। কিন্তু এখনও বিষয়টির সুরাহা হয়নি। এ কারণে তাদের মধ্যে চরম অসন্তোষ ও হতাশা বিরাজ করছে। সরকারি আদেশ জারির পরও এই বিষয়ে আপত্তি আসছে, যা অমানবিক।

তারা জানান, গত ২৩ বছর ধরে বিশেষ আনসার সদস্যরা এবং প্রায় ৩৭ বছর ধরে হিল আনসার সদস্যরা অস্থায়ীভাবে দৈনিক মজুরিভিত্তিতে কাজ করছেন। ২০১৬ খ্রিষ্টাব্দের ১১ ফেব্রুয়ারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাদের চাকরি স্থায়ীকরণের বিষয়টির সুনির্দিষ্ট প্রস্তাব উত্থাপন করার জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দিয়েছিলেন। রাষ্ট্রপতিও চাকরি বিধিমালার নিয়োগনীতিতে শিথিলতা দেন। কিন্তু এখনও বিষয়টির কোনো সমাধান হয়নি।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, বর্তমানে ৪৩৯ জন বিশেষ এবং ৬০০ হিল আনসারের মধ্যে ৯৭২ জন কর্মরত আছেন।

এদিকে সর্বশেষ গত ২১ আগস্ট স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব জোসেফা ইয়াসমিন স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে বলা হয়, দীর্ঘ প্রক্রিয়া সম্পন্নের পর পুনরায় একই প্রস্তাব নিয়ে পদ সৃজনের কার্যক্রম শুরু করা সমীচীন হবে না। হিল আনসার ও বিশেষ আনসার সদস্যদের স্থায়ী করণের জন্য নতুন ব্যাটালিয়ন গঠন করে পদ সৃজনের প্রয়োজনীয় কার্যক্রম গ্রহণ করা হচ্ছে।

অন্যদিকে আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর আলাদা সত্ত্বা হিসেবে বিবেচনার দাবিও উঠে। যা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আলোচ্যসূচিতেও আছে।
সেখানে বলা হয়, আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সহায়ক শক্তির পরিবর্তে আলাদা সত্ত্বা হিসেবে বিবেচনার একটি প্রক্রিয়া চলছে। তবে তার আগে আর্থিক সংশ্লেষ, আন্তঃবাহিনী সম্পর্ক, কর্মপরিধির বিস্তৃতি ইত্যাদি পর্যালোচনার জন্য আনসার ও ভিডিপি অধিদফতরে কার্যক্রম চলমান রয়েছে।

এ বিষয়ে আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর প্রশিক্ষণ বিভাগের সহকারী পরিচালক ও জনসংযোগ মো. জাহিদুল ইসলাম জানান, সবগুলো বিষয় বর্তমানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের এখতিয়ারে। কবে নাগাদ কী বাস্তবায়ন হবে, সেটাও তারাই বলতে পারবেন।

জনপ্রিয়