ঢাকা সোমবার, ২২ জুলাই ২০২৪ , ৬ শ্রাবণ ১৪৩১ আর্কাইভস ই পেপার

nogod
nogod
bkash
bkash
uttoron
uttoron
Rocket
Rocket
nogod
nogod
bkash
bkash

তারল্যসংকট দীর্ঘস্থায়ী হচ্ছে ইসলামি ধারার ব্যাংকগুলোয়

অর্থনীতি

বাণিজ্য ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৮:৪৯, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২৩

সর্বশেষ

তারল্যসংকট দীর্ঘস্থায়ী হচ্ছে ইসলামি ধারার ব্যাংকগুলোয়

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের দেয়া অধিকাংশ সহায়তামূলক ব্যবস্থা ঠিকঠাক কাজে লাগাতে না পারার কারণে দেশের শরিয়াহভিত্তিক ব্যাংকগুলোয় তারল্য সংকট রয়ে গেছে।

গত বৃহস্পতিবার প্রকাশিত মুডি’সের এ প্রতিবেদনে বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য উদ্ধৃত করে শরিয়াহভিত্তিক বা ইসলামি ধারার ব্যাংকগুলোয় তারল্যসংকট দীর্ঘস্থায়ী হওয়ার তথ্য দেয়া হয়েছে। বলা হয়েছে, তারল্য-ঘাটতির প্রভাব ব্যাংকগুলোর ঋণমানেও পড়তে পারে। এতে দেশের ইসলামি ধারার ব্যাংকগুলো স্বল্পমেয়াদি দায় মেটাতে সমস্যায় পড়তে পারে।
ঋণমান যাচাইকারী আন্তর্জাতিক যেসব প্রতিষ্ঠান রয়েছে, তাদের মধ্যে মুডি’স শীর্ষস্থানীয়। আরেকটি শীর্ষস্থানীয় ঋণমান যাচাইকারী প্রতিষ্ঠান হলো ফিচ রেটিংস। প্রতিষ্ঠানটিও গত বৃহস্পতিবার বাংলাদেশের শরিয়াহভিত্তিক ব্যাংক সম্পর্কে তাদের মূল্যায়ন প্রকাশ করেছে।

ফিচ রেটিংসের ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, শরিয়াহ ব্যাংকগুলোর অতিরিক্ত তারল্য গত বছরের জুলাই থেকে গত জুন পর্যন্ত, অর্থাৎ এক বছরে কমেছে ৬৬ দশমিক ৬ শতাংশ বা ৯৮২ কোটি টাকা। অতিরিক্ত তারল্য কমার বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকেরও একই রকম তথ্য রয়েছে।

ফিচের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শরিয়াহভিত্তিক ব্যাংকগুলোর স্বল্পমেয়াদি তারল্যসংকটের চ্যালেঞ্জ হিসাব করা হয় লিকুইডিটি কভারেজ রেশিও বা এলসিআর কমে যাওয়ার হিসাব ধরে। ২০২২ খ্রিষ্টাব্দের শেষ ছয় মাসে শরিয়াহভিত্তিক ব্যাংকগুলোর এলসিআর কমে দাঁড়ায় ৮৭ দশমিক ৭ শতাংশে। ২০২১ খ্রিষ্টাব্দের শেষে এই হার ছিলো ১৮৮ দশমিক ৮।
বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য অনুসারে, দেশের ইসলামি ধারার ব্যাংকগুলোর ঋণ-আমানতের অনুপাত চলতি বছরের জুন মাসে ১০১ শতাংশে উন্নীত হয়েছে, আগের বছরের একই সময়ে যা ছিলো ৯৪ শতাংশ। মুডি’সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ঋণ-আমানতের অনুপাত এত বেশি হওয়ার অর্থ হলো, তারল্যসংকট আরো প্রকট হচ্ছে।

সম্পদের পরিমাণ বিবেচনায় বাংলাদেশের শরিয়াহভিত্তিক ব্যাংকের বাজারের আকার বিশ্বে অষ্টম। এসব ব্যাংকের মোট সম্পদের পরিমাণ ৪ লাখ ৯৭ হাজার ৭ কোটি টাকা।

জনপ্রিয়