ঢাকা শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪ , ৬ বৈশাখ ১৪৩১ আর্কাইভস ই পেপার

nogod
nogod
bkash
bkash
uttoron
uttoron
Rocket
Rocket
nogod
nogod
bkash
bkash

শিক্ষক নিয়োগের গণবিজ্ঞপ্তি এপ্রিলে প্রকাশের পরিকল্পনা

শিক্ষা

রুম্মান তূর্য 

প্রকাশিত: ০০:২০, ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

সর্বশেষ

শিক্ষক নিয়োগের গণবিজ্ঞপ্তি এপ্রিলে প্রকাশের পরিকল্পনা

বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পঞ্চম ধাপে এন্ট্রি লেভেলের শিক্ষক নিয়োগে গণবিজ্ঞপ্তি আগামী এপ্রিলে প্রকাশ করতে চায় বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ (এনটিআরসিএ)। এ গণবিজ্ঞপ্তি অনুসারে অনলাইনে আবেদন করে সনদের মেয়াদ থাকা নিবন্ধিত প্রার্থীরা বেসরকারি স্কুল, কলেজ, মাদরাসা ও কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শূন্য পদে শিক্ষক-প্রভাষক পদে নিয়োগ সুপারিশ পাবেন। ইতোমধ্যে পঞ্চম ধাপে শিক্ষক নিয়োগের কার্যক্রম শুরু হয়েছে। 

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, পঞ্চম ধাপে শিক্ষক নিয়োগের শূন্যপদের তথ্য সংগ্রহে নতুন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ই-রেজিস্ট্রেশন ও আগেই নিবন্ধিত প্রতিষ্ঠানের তথ্য হালানাগাদ কার্যক্রম শেষ হয়েছে। এবার নিবন্ধিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শূন্যপদের তথ্য সংগ্রহ করা হবে। শূন্যপদের তথ্য যাচাই-বাছাই করে আগামী এপ্রিলে গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশের লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়েছে। এনটিআরসিএর শিক্ষাতত্ত্ব ও শিক্ষামান শাখা এ কার্যক্রম চালাচ্ছে। 

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সংশ্লিষ্ট শাখার একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বিষয়টি নিশ্চিত করে দৈনিক আমাদের বার্তাকে বলেন, আমরা এপ্রিলে গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশের লক্ষ্য নিয়ে কাজ চালিয়ে যাচ্ছি। ইতোমধ্যে ই-রেজিস্ট্রেশন শেষ হয়েছে। বেশিরভাগ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান তথ্য হালনাগাদ ও ই-রেজিস্ট্রেশন করেছে। এবার কারিগরি সহায়তা দেয়া প্রতিষ্ঠান টেলিটকের সঙ্গে আলোচনা করে দ্রুত শূন্যপদের তথ্য সংগ্রহ বা ই-রিকুইজেশন প্রক্রিয়া শুরু হবে। 

তিনি বলেন, এবার ই-রেজিস্ট্রেশনের সময় বাড়াইনি। যেসব প্রতিষ্ঠান ই-রেজিস্ট্রেশন বা তথ্য হালনাগাদ করেছে তারা শূন্যপদের তথ্য দেবে। সেগুলো যাচাই-বাছাই করে গণবিজ্ঞপ্তি জারি করা হবে। আর যেসব প্রতিষ্ঠান এবার ই-রেজিস্ট্রেশন বা তথ্য হালানাগাদ করেনি তাদের পরের ধাপে শিক্ষক নিয়োগ দিতে হবে। শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে আমাদের বছরে একাধিকবার শিক্ষক নিয়োগের সুযোগ দিয়ে পরিপত্র জারি করা হয়েছে। তাই আপাতত যে প্রতিষ্ঠানগুলো শূন্যপদের তথ্য দিয়েছে তাদের সে প্রতিষ্ঠানগুলোতে নিয়োগ হবে। আর পরে ফের শূন্যপদের তথ্য সংগ্রহের করে অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে নিয়োগ দেয়া হবে। বছরে একাধিক নিয়োগ দেয়ার পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করা গেলে এতে সংকট সৃষ্টি হবে না। 

কর্মকর্তারা বলছেন, চতুর্থ ধাপে শিক্ষক নিয়োগ চক্রে প্রার্থী না পাওয়া ৪১ হাজার পদ শূন্য ছিলো। যেগুলো ২০২২ খ্রিষ্টাব্দের আগস্ট-সেপ্টেম্বর মাস থেকে খালি। আর গত দেড় বছরে আরো বেশি কিছু পদ শিক্ষকদের অবসর, উচ্চতর পদে নিয়োগ ও মৃত্যুজনিত কারণে শূন্য হয়েছে। সে হিসেবে ৩৫ হাজারের বেশি এমপিওভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অর্ধলক্ষাধিক পদ শূন্য আছে। কিন্তু যেসব প্রতিষ্ঠানে এসব পদ শূন্য আছে সেগুলোর সব ই-রেজিস্ট্রেশন বা তথ্য হালনাগাদ করেছে কি-না তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। 

তবে পঞ্চম ধাপে শিক্ষক নিয়োগের গণবিজ্ঞপ্তি কবে নাগাদ প্রকাশ করা হবে সে বিষয়ে সুস্পষ্টভাবে কোনো মন্তব্য করতে চাননি জানতে চাইলে এনটিআরসিএ সংক্রান্ত তথ্য দেয়ার দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ও সচিব মো. ওবায়দুর রহমান দৈনিক আমাদের বার্তাকে বলেন, ই-রেজিস্ট্রেশন শেষ হয়েছে। শিগগিরই আমরা টেলিটকের সঙ্গে বসে শূন্যপদের তথ্য সংগ্রহ প্রক্রিয়া শুরুর বিষয়ে আলোচনা করবো। তথ্য সংগ্রহ ও যাচাই শেষে গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে।  

জনপ্রিয়